শীতে শিশুকে অসুখ থেকে দূরে রাখতে

শীতে শিশুকে অসুখ থেকে দূরে রাখতে নভেম্বর ২০, ২০১৮ ০ comments
Keep the child away from the disease in winter

শীতে শিশুকে অসুখ থেকে দূরে রাখতে

রঙিন ডেস্ক : সন্ধ্যা হলেই হিমেল হাওয়া আর হাওয়ায় শুষ্ক ভাব আসন্ন শীতের জানান দিচ্ছে। এই সময় সুস্থ থাকতে প্রত্যেকেরই কিছু না কিছু জরুরি সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। বিশেষ করে বাড়িতে শিশু থাকলে তাদের বিশেষ যত্নের প্রয়োজন হয়। একটু সতর্ক হলেই হঠাৎ ঠান্ডা লাগা, টনসিলের সংক্রমণ, হাঁচি-কাশির মতো শীতের স্বাভাবিক রোগভোগের হাত থেকে নিজের সন্তানকে রক্ষা করা যায়।

অনেক শিশুর কম বয়সে গরমের ধাত ও ঠান্ডা লেগে যাওয়ার ধাত একসঙ্গে থাকে। তবু কোনও অবস্থাতেই এসি একেবারেই নয়। কোনও কোনও দিন খুব গরম লাগলে পাখার গতি বাড়িয়ে দিন, খুব ভাল হয় সারা রাতই গায়ে পাতলা একটা চাদর দিয়ে রাখলে। শিশু তা রাখতে না চাইলে অন্তত ভোরের দিকে অবশ্যই গায়ে চাদর দিয়ে দিন।

চাদর টানবেন অবশ্যই, কিন্তু খেয়াল রাখবেন, এতে শিশু যেন না ঘামে। অনেকেই চাদরের সঙ্গে কান, মাথা, গলা ঢেকে ঘুম পাড়ান শিশুকে। ভাবেন, এতে ঠান্ডা লাগবে না। কিন্তু ঘুমের সময় শরীরের মেটাবলিজম রেট কম থাকে। খুব ঢাকাচাপা অবস্থায় হজমের সমস্যা ঘটতে পারে। গলায় মাফলার পেঁচিয়ে রাখলে সমস্যাও হতে পারে। আর অবশ্যই ঘুমের সময় অতিরিক্ত গরম কাপড় তাকে ঘামিয়ে দেয়। তা থেকে আরও ঠান্ডা লাগে।

আরো পড়ুন:- ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার উপায়

এই সময় গোসল নিয়ে অভিভাবকদের মনে নানা প্রশ্ন তৈরি হয়। হাওয়ায় শুকনো ভাব বেশি থাকায় অনেক শিশু গোসল করতেও চায় না। কিন্তু ঠান্ডা লাগা থেকে বাঁচাতে রোজ গোসল করান। হ্যাঁ। এটাই জরুরি। গোসল কোনও ভাবে বাদ নয়। এতে শরীর গরম হয়ে জ্বর আসতে পারে, তা ছাড়া গোসল না করলে শরীরে পানিতের চাহিদাও পূরণ হয় না, গায়ের ধুলাবালিও পুরো যায় না, ফলে সংক্রমণ হয়। বরং গরম পানি, গ্লিসারিন সাবান ও কম ক্ষারযুক্ত শ্যাম্পু দিয়ে গোসল করান শিশুকে। গোসল সেরেই গরম তোয়ালে দিয়ে শরীর ঢেকে রাখুন। শিশু অসুস্থ থাকলে বা শীতকাতুরে হলে গরম পানিতে তোয়ালে ভিজিয়ে গা মুছিয়ে দিন। হালকা করে মাথা ধুইয়ে দিন সে ক্ষেত্রে।
রোগ থেকে রক্ষার পাশাপাশি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়িয়ে তুলুন শিশুর। ভিটামিন সি যুক্ত ফল, মরসুমি সবজি খাওয়ান। কোনও কোনও সবজিতে অ্যালার্জি থাকলে তা এড়ান, কিন্তু প্রচুর সবুজ শাক-সবজি রাখুন ডায়েটে।

টিফিনে হালকা খাবার খাওয়ান। মুড়ি-চিঁড়া-দই এ সব দিন। জাঙ্ক ফুড বা তেলমশলার খাবার বাদ দিন ডায়েট থেকে। তবে শিশু বায়না করলে কখনও সখনও তার ইচ্ছারও গুরুত্ব দিন। হালকা তেলে বানিয়ে দেওয়া যায় এমন মুখরোচক খাবার বাড়িতে বানিয়ে দিন। শীতে এমনিতেই বনভোজন, নিমন্ত্রণ, বেড়াতে যাওয়া লেগেই থাকে। এমনিই অনেক তেলমশলার খাবার খাওয়া হয়ে যায়। তাই বাড়িতে রাশ টানুন।

শিশুর শ্বাসকষ্ট বা ধুলা থেকে আলার্জি হলে রাস্তায় বেরোলে মাস্ক পরান অবশ্যই। বাসে-ট্রেনে কোথাও গেলে মাফলার রাখুন গলায়। প্রয়োজন অনুযায়ী গরম কাপড় দিন। তবে শিশুর দৌড়ঝাঁপের সময় খুব গরম কাপড় নয়। পারলে হালকা চাদর জড়িয়ে দিন।

আরপি/ এএইচ

No Comments so far

Jump into a conversation

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

<