সৌন্দর্যের এক অনন্য নিদর্শন নাফাখুম

সৌন্দর্যের এক অনন্য নিদর্শন নাফাখুম 0 comments

রঙিন ডেস্ক: প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের এক অনন্য নিদর্শন বান্দরবান। যেখানে প্রকৃতি নিজ ঐশ্বর্যকে ঢেলে দিতে কৃপণতা করেননি। পাহাড়ি এ জেলায় রয়েছে অসংখ্য হ্রদ, ঝর্না, নদী, খাল ও ঝিরি। সেখানকার জীববৈচিত্র্য এবং তাদের ঐতিহ্যপূর্ণ বর্ণাঢ্য সংস্কৃতি যেকোনো সংস্কৃতি মনা ও অ্যাডভেঞ্চারপ্রিয় মানুষকে আকৃষ্ট করে করে।

এমনই একটি জায়গা ‘নাফাকুম’। প্রকৃতি যেন আপন মনের মাধুরি মিশিয়ে সাজিয়েছে এই জলপ্রপাতটি। তাই প্রাকৃতিক সৌর্ন্দয, অবারিত সবুজের সমারোহ এবং মেঘ ছোঁয়ার ইচ্ছে হলেই ঘুরে আসুন পাহাড়ি কন্যা বান্দরবানের জলপ্রপাত ‘নাফাকুম’ থেকে।

বাংলার নায়াগ্রা হিসেবে খ্যাত নাফাখুম। মারমা ভাষায় ‘নাফা’ অর্থ মাছ আর ‘খুম’ অর্থ জলপ্রপাত। বান্দরবানের থানছি উপজেলা হতে গাইড নিয়ে ইঞ্জিন নৌকা রিজার্ভ করে যাওয়া যায় নাফাখুম। নাফাখুম যেতে হলে সময় স্বল্পতার কারণে একরাত কাটাতে হবে সেখানে। যেতে হবে ছবির মতো সুন্দর সাঙ্গু নদী বেয়ে। এই নদীটিই একমাত্র বাংলাদেশে উৎপত্তি। রেমাক্রি খালের পানি প্রবাহ এই নাফাখুম। সূর্যের আলোয় যেখানে তৈরি হয় রংধনুর বর্নিল আভা। পানির তীব্র স্রোত, স্বচ্ছ জলের নদীতে পাথরের তলদেশ, দু’পাশে দিগন্ত ছোঁয়া পাহাড় যেন প্রাচীর হয়ে আছে। দূর থেকে দেখা যায় রাজাপাথর (বিশালাকৃতির পাথর)।

সৌন্দর্যের এক অনন্য নিদর্শন নাফাখুম

সৌন্দর্যের এক অনন্য নিদর্শন নাফাখুম

মনে হবে সত্যিই রাজা হয়ে দাঁড়িয়ে আছে, পাথরের রাজ্যে। কখনও নদী-খাল কখনও ঝিরি কখনওবা পাহাড়-টিলা ডিঙ্গিয়ে থানছি থেকে প্রায় চার ঘণ্টা হেঁটে নাফাখুম জলপ্রপাতের দেখা পাওয়া যাবে।

সেখানে রেমাক্রিতে স্থানীয় আদিবাসীদের তৈরি কটেজ এ স্বল্প খরচে রাতযাপনের সুবিধা রয়েছে। তবে অবশ্যই মশা ও জোঁক প্রতিরোধক ক্রিম সঙ্গে নিবেন। সঙ্গে রাখতে হবে পর্যাপ্ত পরিমাণ খাবার স্যালাইন ও শুকনো খাবার।

নাফাখুম যাওয়ার সহজ উপায় হচ্ছে বান্দরবান শহর হতে জিপ অথবা চাঁদের গাড়ি ভাড়া নিয়ে থানচি বাজার পর্যন্ত যেতে হবে। গাড়িগুলো ৪০০০-৬০০০ টাকার মধ্যে ভাড়ায় পাওয়া যায়। সেখান থেকে ইঞ্জিন চালিতা নৌকায় যেতে হবে রেমাক্রিতে। যেখানে এক রাতে অবস্থান করতে হবে।

রাত্রি যাপনের জন্য উন্নতমানের কোনো হোটেল না থাকলেও উপজাতিদের বিভিন্ন পাড়ায় রয়েছে খুব স্বল্প খরচে থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা। জনপ্রতি ১৫০-২০০ টাকার মধ্যে থাকার ব্যবস্থা। তাদের নিজস্ব তৈরি খাবার ও কটেজগুলোতে অবস্থান নিয়ে পরদিন ভোরেই যাত্রা করতে হবে নাফাখুমের উদ্দেশে। সেখানে একটি ত্রিপুরা পাড়া রয়েছে, যেখানে আপনি চাইলে জনপ্রতি ১৫০-২০০ টাকার মধ্যে রাত্রি যাপন করতে পারেন।

এসএল/এএইচ

No Comments so far

Jump into a conversation

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

Your data will be safe!Your e-mail address will not be published. Also other data will not be shared with third person.