‘বাজরাঙ্গি ভাইজান’-এর গল্প নকল!

‘বাজরাঙ্গি ভাইজান’-এর গল্প নকল! 0 comments

রঙিন ডেস্ক: গত ১৭ জুলাই মুক্তি পায় ‘বাজরাঙ্গি ভাইজান’। মুক্তির পর থেকেই বক্স-অফিসে একের পর এক রেকর্ড গড়ে চলেছে কাবির খান পরিচালিত সিনেমাটি। পাশের দেশ পাকিস্তানসহ আন্তর্জাতিক বাজারে দারুণ ব্যবসা করছে সিনেমাটি।

তবে ব্যবসা সফল এই সিনেমাটি নিয়ে নানা বির্তকও আছে। এর আগে জানা গিয়েছিল, ‘বাজরাঙ্গি ভাইজান’-এর বিখ্যাত কাওয়ালি ‘ভার দো ঝোলি মেরি’-র সুর না কি এক পাকিস্তানি গান থেকে চুরি করেছেন সুরকার প্রীতম। সেই বিতর্ক মিটতে না মিটতেই সামনে এল নতুন এক খবর। একটা গান নয়, ‘বাজরাঙ্গি ভাইজান’ পুরো ছবিটাই না কি নকল!

সম্প্রতি এমন দাবি করেছেন মহিম যোশি নামে এক পরিচালক-চিত্রনাট্যকার-প্রযোজক। শুধু দাবি তুলেই থেমে থাকেননি মহিম, ৫০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি করে মামলাও করেছেন আদালতে।

মহিমের দাবি, পরিচালক কবীর খান যে গল্প নিয়ে ছবি করেছেন, তার চিত্রনাট্য অনেক আগেই ইন্ডিয়ান ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন কাউন্সিল এবং অ্যাসোসিয়েশন অব মোশন কাউন্সিলের অধীনে নথিভুক্ত করিয়েছিলেন তিনি। তার চিত্রনাট্য নিয়ে ছবি করার কথা ছিল বিবেক ওবেরয়ের প্রযোজনা সংস্থা ইয়াশি মাল্টি মিডিয়ার। কিন্তু, যে কোনো কারণেই হোক না কেন, তারা ছবি তৈরিতে আগ্রহ দেখায়নি। এরপর বেশ খানিকটা সময় চলে যায়। এবং মেয়াদ পেরিয়ে গেলে ইয়াশি মাল্টি মিডিয়ার সঙ্গে চুক্তি শেষ হয়ে যায় মহিমের। মহিম তখন ছবির চিত্রনাট্য ভায়াকম ১৮ মোশন পিকচার্সের কাছে দেয়।

মহিম জানাচ্ছেন, এরপরে তিনি চমকে ওঠেন, যখন জানতে পারেন তার চিত্রনাট্যের গল্প নিয়েই তৈরি হয়েছে ‘বাজরাঙ্গি ভাইজান’। এমনকী, তার বিস্ময় চরমে ওঠে এটা দেখে যে ‘বাজরাঙ্গি ভাইজান’-এর টিম কৃতজ্ঞতা স্বীকার করেছে ভায়াকম ১৮ মোশন পিকচার্সের কাছে!

স্বাভাবিকভাবেই আর দেরি করেননি মহিম। সোজা আদালতে গিয়ে মামলা ঠোকেন। তারপরের ঘটনা এখনও পর্যন্ত রয়েছে মহিমের পক্ষেই।

জানা গিয়েছে, বিচারক ‘বাজরাঙ্গি ভাইজান’-এর গল্পের সঙ্গে মিলিয়ে দেখেছেন মহিমের চিত্রনাট্য। এবং তারপরে তিনি বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত ভাবে কথা বলার জন্য আদালতে ডেকে পাঠিয়েছেন ‘বাজরাঙ্গি ভাইজান’-এর পরিচালক কবীর খান, পরিচালক রকলাইন ভেঙ্কটেশ আর রাজেশ ভট্ট এবং চিত্রনাট্যকার কেভি বিজয়েন্দ্র প্রসাদকে। এই বিষয় নিয়ে কথা বলার জন্য আদালতে হাজিরা দিতে হবে সলমন খানকেও।

জানা গিয়েছে, ২১ অক্টোবর আদালতে হাজিরা দেবেন তারা! সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

এসএল/এএইচ

No Comments so far

Jump into a conversation

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

Your data will be safe!Your e-mail address will not be published. Also other data will not be shared with third person.