চুলের জন্য মেহেদির চারটি প্যাক

চুলের জন্য মেহেদির চারটি প্যাক January 10, 2017 0 comments

রঙিন ডেস্ক : চুলের প্রধান শত্রু খুশকি। এর ফলেই চুল পড়ে। শীতকালে এই খুশকির উপদ্রব বেড়ে যায় অনেকখানি। যাদের চুলে খুশকি থাকে না, তাদের মাথায়ও শীতকালে খুশকি দেখা দিয়ে থাকে। অ্যান্টি ড্যানড্রাফ শ্যাম্পু ব্যবহার করেও এই খুশকি দূর করা সম্ভব হয় না। মেহেদির কিছু প্যাক আছে যা খুশকি দূর করতে বেশ কার্যকরী। এছাড়াও চুল পড়া রোধ করে চুলের গোড়া মজবুত করে। চলুন দেখে নেয়া যাক প্যাকগুলি-

১। ডিম, অলিভ অয়েল এবং মেহেদির প্যাক

ডিমের সাদা অংশ, অলিভ অয়েল এবং মেহেদি গুঁড়ো মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এটি চুলের গোড়ায় খুব ভাল করে লাগান। ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে ফেলুন।

২। লেবু, টকদই এবং মেহেদি

একটি লেবুর রস, চার টেবিল চামচ মেহেদির গুঁড়ো এবং পরিমাণমত টকদই মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এটি চুলের গোঁড়া থেকে শুরু করে সম্পূর্ণ চুলে লাগিয়ে নিন। ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে ফেলুন। তারপর কন্ডিশনার ব্যবহার করতে ভুলে যাবেন না।

৩। মেহেদি, অলিভ অয়েল এবং মেথি

মেহেদি গুঁড়ো, লেবুর রস, এক টেবিলচামচ অলিভ অয়েল, সাদা ভিনেগার , মেথি গুঁড়ো এবং দুই টেবিল চামচ টকদই মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এবার প্যাকটি ১২ ঘণ্টা রেখে দিন। পরেরদিন সকালে এই প্যাকটি মাথায় ভাল করে লাগিয়ে নিন। ২-৩ ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করে ফেলুন। এই প্যাকটি খুশকি দূর করবে, চুলের গোড়া মজবুত করে চুলকে স্বাস্থ্যোজ্বল করে তুলবে।

৪। মেহেদি, মেথি এবং সরিষা তেল

একটি পাত্রে সরিষা তেল গরম করে নিন। সরিয়া তেল থেকে ধোঁয়া উঠলে চুলা থেকে নামিয়ে ফেলুন। তারপর এতে কিছু তাজা মেহেদি পাতা এবং দুই চা চামচ মেথি দিয়ে দিন। অপেক্ষা করুন যতক্ষণ পর্যন্ত মেহেদির পাতার রং পরিবর্তন না হয়। মেহেদির পাতার রং পরিবর্তন হতে কয়েক ঘন্টা লেগে যায়। সবচেয়ে ভাল হয়ে এটি এভাবে সারারাত রাখুন। পরেরদিন এটি ছেঁকে পাতা এবং তেল আলাদা করে নিন। এই তেলটি নিয়মিত চুলে ম্যাসাজ করে লাগান। এক ঘণ্টা এই তেল মাথায় রেখে শ্যাম্পু করে ফেলুন।

মেহেদির এই প্যাকগুলো নিয়মিত ব্যবহারে চুল পড়া রোধ করবে তার সাথে সাথে খুশকি দূর করে দিবে।

আরপি/ এএইচ

No Comments so far

Jump into a conversation

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

Your data will be safe!Your e-mail address will not be published. Also other data will not be shared with third person.