গণমাধ্যমের ওপর বেজায় চটেছেন ট্রাম্প

গণমাধ্যমের ওপর বেজায় চটেছেন ট্রাম্প January 12, 2017 0 comments

রঙিন ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হ্যাকিং সংক্রান্ত গোয়েন্দাদের তথ্য গণমাধ্যমে ফাঁস করায় বেজায় চটেছেন যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।সিএনএন, নিউ ইয়র্ক টাইমসসহ যেসব গণমাধ্যমে রাশিয়ার সঙ্গে তার প্রচারশিবিরের আঁতাত থাকার কথা প্রচার করেছে তা ভিত্তিহীন ও ভূয়া বলে আখ্যা দিয়েছেন তিনি।

গোয়েন্দারা তথ্য ফাঁস করায় ক্ষিপ্ত হয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘এ ধরনের তথ্য কখনোই লেখা উচিত হয়নি এবং নিঃসন্দেহে প্রকাশ করাও উচিত হয়নি।’ তিনি আরো বলেন, ‘পুরোটাই ভুয়া খবর। অবাস্তব ব্যাপার। এমনটি কখনোই ঘটেনি। অসুস্থ লোকজনই এ ধরনের খবর প্রকাশের জন্য দায়ী।

গোয়েন্দাসংস্থাগুলো ও গণমাধ্যমে তার বিরুদ্ধে প্রকাশিত খবর সম্পর্কে ট্রাম্প বলেন, ‘নাৎসি জার্মানির মতো কিছু করা হয়েছে তার বিরুদ্ধে।

গত সপ্তাহে মার্কিন নির্বাচনে রাশিয়ার হ্যাকিং বিষয়ে গোপন প্রতিবেদন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের হাতে তুলে দেয় গোয়েন্দাসংস্থাগুলো। গোয়েন্দা তথ্য পাওয়ার পর ট্রাম্প প্রথমবারের মতো স্বীকার করেন, নির্বাচন চলাকালীন ডেমোক্র্যাটিক পার্টির ন্যাশনাল কমিটি ও দলটির কয়েকজন নেতার ই-মেইল হ্যাক করেছিল রাশিয়া। তবে পুতিনের নির্দেশেই সেই হ্যাকিং হয়েছিল বলে তিনি মানতে নারাজ।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ের পর এবং ক্ষমতা গ্রহণের নয় দিন আগে স্থানীয় সময় বুধবার নিউ ইয়র্কে প্রথম আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন করেন ট্রাম্প। ট্রাম্প টাওয়ারের লবিতে জনাকীর্ণ পরিবেশে তিনি তার বক্তব্য তুলে ধরেন।

ব্যবসার নেতৃত্ব ছেলেদের হাতে বুঝিয়ে দেওয়ার বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন হওয়ার কথা থাকলেও পুরো সময়ে রাশিয়ার হ্যাকিং ও গোয়েন্দাদের প্রতিবেদন এতে প্রধান্য পায়। ট্রাম্প বলেন, বড় দুই ছেলের হাতে তার সব ব্যবসার দায়িত্ব বুঝিয়ে দেবেন।

নির্বাচনে হিলারি ক্লিনটনকে হারিয়ে তাকে বিজয়ী করতে হ্যাকিং চালিয়ে রাশিয়া সাহায্য করেছে বলে গোয়েন্দারা যে তথ্য হাজির করেছে- সে বিষয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘আমি সহজেই নির্বাচনে জিতেছি। এটি একটি পরীক্ষিত বিষয়। এখন ভুয়া খবরে কুটিল বিরোধীশিবির সেই বিজয়কে মর্যাদাহানিকর করে তুলছে। দুঃখজনক অবস্থা।’

রাশিয়ার সঙ্গে গোপন সম্পর্ক থাকার অভিযোগের বিষয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘আমাকে সুবিধা পাইয়ে দিতে রাশিয়া কিছুই করেনি। রাশিয়ার সঙ্গে আমি কিছু করিনি- না কোনো চুক্তি, না কোনো ঋণ নিয়েছি আমি।’

এএইচ

No Comments so far

Jump into a conversation

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

Your data will be safe!Your e-mail address will not be published. Also other data will not be shared with third person.