চরিত্রটা ছিলো খল, কৌতুকের নয়: বাবু

চরিত্রটা ছিলো খল, কৌতুকের নয়: বাবু নভেম্বর ৯, ২০১৯ ০ comments

রঙিন ডেস্ক : অভিনয় জগতে বড় একটি নাম ফজলুর রহমান বাবু। যিনি অভিনয়কে এতটাই ভালোবাসেন যে, সম্ভাবনাময় চাকরিটাও ছেড়ে দেন। নিশ্চিত বিলাসী জীবন ছেড়ে মঞ্চকে আপন করে নেন। অভিনয়ে তার অবদান অনেক বেশিই। কিন্তু অভিনয়ের কারণে তিনি যতবারই পুরস্কার পেয়েছেন ততবারই সেটাতে থাকে দর্শকমহলের সমালোচনা। কেননা ভক্তরা মনে করেন তার আরো বড় কোনো স্বীকৃতি প্রাপ্য। এবারো তেমনটাই ঘটল!

এবার যখন ফজলুর রহমান বাবু সেরা কৌতুক অভিনেতা ক্যাটাগরিতে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার গেজেট প্রকাশের মাধ্যমে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাওয়া শিল্পীদের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। এতে ২০১৭ এবং ২০১৮ সালের সেরা কৌতুক অভিনেতা হিসেবে ফজলুর রহমান বাবু ও মোশাররফ করিমের নাম দেখে অনেকেই মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। অনেকেই মন্তব্য করেছেন: ফজলুর রহমান বাবুর পুরস্কারটি গ্রহণ করা উচিৎ হবে না।

ফজলুর রহমান বাবু এবং মোশাররফ করিম দুজনই জনপ্রিয় অভিনেতা। ২০১৭ সালে মুক্তি পাওয়া বদরুল আনাম সৌদ পরিচালিত ‘গহীন বালুচর’ সিনেমায় অভিনয়ের জন্য সেরা কৌতুক অভিনেতার পুরস্কার দেয়া হয়েছে তাকে। অন্যদিকে ২০১৮ সালে মুক্তি পাওয়া ‘কমলা রকেট’ সিনেমায় অভিনয়ের জন্য সেরা কৌতুক অভিনেতার পুরস্কার দেয়া হয়েছে মোশাররফ করিমকে। মোশাররফ করিম দেশের বাইরে অবস্থান করায় এ প্রসঙ্গে তার প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি। তবে এই অভিনেতার সঙ্গে আলাপ হয়।

আরো পড়ুন:- ফের ‘চোলি কে পিছে’ গানে ঝড় তুললেন মাধুরী

বাবু বলেন, এই পুরস্কারের ক্যাটাগরি হচ্ছে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা কৌতুক চরিত্র। কিন্তু আমার চরিত্রটি কৌতুক চরিত্র ছিল না। আমি যে চরিত্রে অভিনয় করেছি সেটা খল চরিত্র বলা যেতে পারে। আগে যে ফরম্যাটে সিনেমা নির্মিত হতো তাতে কৌতুক চরিত্র থাকত। এখন সেরকমভাবে সিনেমা নির্মিত হয় না। এখন একটা ফিকশনে অনেকগুলো চরিত্র থাকে। আমার যারা দর্শক বা শুভাকাঙ্ক্ষি তারা আমাকে সিরিয়াস চরিত্রে দেখে অভ্যস্ত। এজন্য অনেকে মনে করছেন বাবু ভাইকে কৌতুক অভিনেতা হিসেবে পুরস্কার দেয়া হয়েছে। কিন্তু আমি তো কৌতুক অভিনেতা না। পুরস্কার দেয়া হয়েছে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা কৌতুক চরিত্রের জন্য। কৌতুক অভিনেতা ও শ্রেষ্ঠ অভিনেতা কৌতুক চরিত্র কিন্তু এক বিষয় না। এই জায়গায় একটু পার্থক্য আছে। তাছাড়া আমি কৌতুক চরিত্রে অভিনয় করিনি।

ফজলুর রহমান বাবু আরো বলেন, পুরস্কারের জন্য যে প্রস্তাব পাঠানো হয় সেটা পরিচালক পাঠিয়ে থাকেন। সেখানে পরিচালক বা প্রযোজক আমার নাম হয়তো এই ক্যাটাগরিতে প্রস্তাব করেছিলেন। এখানে জুরি বোর্ডের কোনো ভূমিকা নেই। প্রস্তাব অনুসারে সিনেমা দেখে জুরি বোর্ড শুধু সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আরপি/ এএইচ

No Comments so far

Jump into a conversation

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

<