রোহিঙ্গা সঙ্কটের ঘটনায় হতভম্ব সূচি!

রোহিঙ্গা সঙ্কটের ঘটনায় হতভম্ব সূচি! October 13, 2017 0 comments

রঙিন ডেস্ক :  মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি তার দেশের রোহিঙ্গা শরণার্থী সঙ্কটের ঘটনায় হতভম্ব এবং এই সমস্যা সমাধানে তিনি দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। তবে পরিস্থিতি যাতে আরো উত্তপ্ত না হয়ে উঠে সেজন্য আরো সতর্ক হওয়া প্রয়োজন।

শুক্রবার সুইজারল্যাণ্ডের রাজধানী জেনেভায় বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) নেত্রী অং সান সু চির একজন উপদেষ্টা এ মন্তব্য করেন।

‘যা দেখেছেন তাতে তিনি ভীত। এ ব্যাপারে তিনি গভীর সতর্ক আছেন। আমি জানি এই পরিস্থিতি সব সময় তৈরি হয় না। কিন্তু তিনি আসলেই সতর্ক আছেন’- নাম প্রকাশ না করার শর্তে সু চির ওই উপদেষ্টা এসব তথ্য জানান।

গত ২৫ আগস্ট রাখাইনে পুলিশের ওপর রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের হামলার পর থেকে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা বাড়ছে। সেনাবাহিনীর নৃশংস অভিযানে লাখ লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম বাংলাদেশে পালিয়েছে। রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের হামলার পর ছয় সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও এখনও রোহিঙ্গা মুসলিমরা রাখাইন ছেড়ে পালাচ্ছেন।

আক্রমণাত্মক অভিযানে লাখো রোহিঙ্গা পালিয়ে আসার ঘটনায় মিয়ানমার কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপে অনুমোদন দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। সেনা অভিযান ঘিরে মিয়ানমারকে হুঁশিয়ারি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রও।

রাখাইনে রোহিঙ্গা নিপীড়নের কারণে মিয়ানমারের সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান এবং জ্যেষ্ঠ সেনা কর্মকর্তাদের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার কথা জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। এ ব্যাপারে একটি খসড়া প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে ২৮ দেশভুক্ত সংস্থাটির প্রতিনিধিরা। আগামী সোমবার ব্রাসেলসে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে উত্থাপন করা হবে এটি।

এদিকে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে অভিযানের জেরে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ওপর যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের সম্ভাব্য নিষেধাজ্ঞা কারও জন্য ভালো কিছু বয়ে আনবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে মিয়ানমার। দেশটির পরিকল্পনা ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী সচিব ইউ টুন টুন নাইং এ হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বলে মিয়ানমার টাইমসের এক প্রতিবেদনে বুধবার জানানো হয়েছে।

সূত্র : রয়টার্স / এএইচ

No Comments so far

Jump into a conversation

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

Your data will be safe!Your e-mail address will not be published. Also other data will not be shared with third person.