সম্পর্কের ক্ষেত্রে প্রেমিকের কিছু আচরণ

সম্পর্কের ক্ষেত্রে প্রেমিকের কিছু আচরণ মার্চ ১৭, ২০১৮ ০ comments

রঙিন ডেস্ক : অনেক নারীই তাদের সবচেয়ে কাছের মানুষটিকে বুঝতে পারেন না। অনেক সময় প্রেমিকের মন না বুঝেই ভুল বুঝে মন খারাপ করে বসে থাকেন প্রেমিকাটি। সাধারণত পুরুষরা কিছুটা চাপা স্বভাবের হয় এবং আবেগ অনুভূতি প্রকাশ করার ক্ষেত্রে কিছুটা কাঁচা হওয়ার কারণে তাদেরকে বোঝা অনেক সময়েই দায় হয়ে পড়ে। মনে হয় মানুষটা একেবারেই আপনার দিকে মনযোগ দেয় না। কিংবা ভালোবাসা নিয়ে তার মাঝে কোনো আবেগ নেই? তাহলে জেনে রাখুন, সম্পর্কের ক্ষেত্রে পুরুষদেরও নারীদের মতই আবেগ অনুভূতি কাজ করে। এবং অনেক ক্ষেত্রে নারীদের চেয়ে বেশিই! আসুন, আজ জানা যাক প্রেমিকের কিছু বিচিত্র স্বভাব সম্পর্কে-

পুরুষরা সারাদিন অনেক মেয়ের সাথে ফ্লার্ট করলেও ঘুমাতে যাওয়ার আগে তারা সেই মানুষটির কথাই ভাবেন যাকে সবচেয়ে বেশি ভালোবাসেন।

প্রেমিকাকে বলার জন্য প্রায় সব পুরুষই মনে মনে অনেক কিছু ঠিক করে রাখলেও ফোন করলে সেসব কিছুই বলতে পারেন না।

পুরুষরা তাদের ভালোবাসার মানুষটির হাসি দেখার জন্য অস্থির থাকে।

পুরুষরা তাদের প্রেমিকার পুরনো প্রেমিকের ব্যাপারে কোনো কথা শুনতে চায় না এবং সহ্য করতে পারে না।

প্রেমিকা যখন তাদের ছেলে বন্ধুর সাথে কথা বলে তখন পুরুষরা মনের অজান্তেই হিংসা করে।

পুরুষরা নারীদের থেকে বেশি আবেগপ্রবণ যদিও তারা সেটা প্রকাশ করে না।

কোনো পুরুষ যদি কোন নারীর সাথে তার সব সমস্যা মন খুলে আলোচনা করে তাহলে বুঝে নিতে হবে যে সে তাকে নিজের চেয়েও বেশি বিশ্বাস করে।

পুরুষরা তার প্রেমিকা/স্ত্রীর সামনে নিজের বন্ধুদের তুলনায় নিজেকে ভালো দেখাতে চায় সবসময়। আর এইজন্য প্রেমিকা/স্ত্রীকে নিয়ে বন্ধুদের সাথে দেখা করতে যাওয়ার সময় বেশ সময় নিয়ে তৈরি হয় তারা।

একটি সম্পর্ক যখন ভেঙে যাওয়ার মত পরিস্থিতিতে যায় তখনই কেবলমাত্র তারা সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার জন্য চেষ্টা শুরু করে। তার আগ পর্যন্ত বেশিরভাগ পুরুষই প্রেমিকার/স্ত্রীর মন রক্ষা করা নিয়ে অবহেলা করে।

পুরুষরা যে কোনো বিষয় নিয়ে অপর একজন পুরুষের চেয়ে নারীর সাথে আলোচনা করতে বেশি পছন্দ করে।

অধিকাংশ পুরুষই একেবারে হাড্ডিসার নারীদের প্রতি আকর্ষণবোধ করে না, স্লিম মেয়ে তাদের পছন্দ।

আপনি যদি আপনার প্রেমিক/স্বামীর মন জয় করে নিতে পারেন তাহলে সে আপনার জন্য খাওয়া, ঘুম, খেলা সব ত্যাগ করতে পারবে।

একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে নারীর সুন্দর হেয়ার স্টাইল পুরুষদেরকে তীব্রভাবে আকর্ষণ করে।

পুরুষরা জীবনসঙ্গী হিসেবে মায়ের সাথে স্বভাবে মিল আছে এমন নারীকে চায়।

বেশিরভাগ পুরুষই কেনাকাটা করতে অপছন্দ করে এবং যখন তাদের সঙ্গী কেনাকাটা করতে দোকানে ঢোকে তখন তারা দোকানের বাইরে দাঁড়িয়ে থাকে।

সম্পর্কের মেয়াদ তিন বছর বা তার বেশি হয়ে গেলে পুরুষরা বুঝতে পারে যে তারা সেই সম্পর্কের ব্যাপারে সত্যিই মনোযোগী এবং তখন তারা সেটাকে বিয়েতে পরিণতি দিতে চায়।

পুরুষের শারীরিক তাপমাত্রা নারীর চেয়ে বেশি থাকে। আর তাই সঙ্গীর সাথে ফ্যান ও এসি ছাড়া নিয়ে প্রায়ই তাদের ঝামেলা লাগে।

কোন পুরুষ যদি আপনাকে বলে যে সে একা থাকতে চায় তাহলে ঠিক সেটার বিপরীত কাজটি করতে হবে। কারণ পুরুষরা যখন মুখে বলে যে সে একা থাকতে চায় তখন মনে মনে চায় যে তার সাথে তার সঙ্গীটি থাকুক এবং তাকে সময় দিক।

আরপি/ এএইচ

এসজেডকে

No Comments so far

Jump into a conversation

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

<