শারীরিক-মানসিক কোন অত্যাচারই সহ্য করবেন না

শারীরিক-মানসিক কোন অত্যাচারই সহ্য করবেন না জুলাই ১৮, ২০২০ ০ comments

রঙিন ডেস্ক : লকডাউনের সময়ে গার্হস্থ্য হিংসার ঘটনা বেড়েছে লাফিয়ে লাফিয়ে, জাতীয় মহিলা কমিশনের কাছে জমা পড়েছে বহু অভিযোগ। কিন্তু অভিযোগের নির্দিষ্ট সংখ্যার বাইরেও থেকে যায় এমন অনেক ঘটনা যা নথিবদ্ধ হয়নি কোথাও। আবার অনেক সময় অত্যাচার শুধু শারীরিক নয়, মানসিকও হয়। অনেক ক্ষেত্রেই শারীরিক বা মানসিক অত্যাচারের শিকার হওয়া সত্ত্বেও মেয়েরা সম্পর্ক ভেঙে বেরিয়ে আসতে পারেন না নানা কারণে, ভিতরে ভিতরে নিজেরাই দগ্ধ হন।

কিন্তু সম্পর্ক যেমনই হোক, শারীরিক বা মানসিক কোনও অত্যাচারই মেনে নেওয়া উচিত নয়। এ কথা সত্যি যে অবস্থার চাপে সব মেয়ে সম্পর্ক চুকিয়ে বেরিয়ে আসতে পারেন না। কিন্তু তেমন হলেও মুখ বুজে অত্যাচার সহ্য করবেন না। অত্যাচারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান। রইল কিছু পরামর্শ।

অত্যাচারের পরিমাণ কখনও কমে না
অনেক মেয়েই আরও অশান্তির ভয়ে মুখ বুজে অত্যাচার সহ্য করেন। কিন্তু এতে উলটোদিকের পুরুষটি সাহস পেয়ে যান। একই অপরাধ তিনি বারবার করতে থাকেন, ব্যাপারটা তাঁর অভ্যেসে পরিণত হয়। তাই চুপ করে থাকবেন না, নিজের আত্মসম্মান বজায় রাখুন। প্রতিবাদ করুন, অত্যাচার মাত্রা ছাড়ালে পুলিশকে জানাতে দ্বিধা করবেন না।

মানসিক অত্যাচারও অত্যাচার
শারীরিক অত্যাচার যতটা খারাপ, মানসিক অত্যাচার তার চেয়ে কোনও অংশে কম নয়। ভয় দেখানো, জনসমক্ষে অপমানসূচক কথা বলা, স্বাধীন সত্তা নিয়ন্ত্রণ করতে চাওয়া, এ সবই মানসিক অত্যাচারের উদাহরণ। দিনের পর দিন এই পরিস্থিতির শিকার হলে মেয়েরা ক্রনিক ডিপ্রেশন, উদ্বেগ, অস্বস্তি, ভয়ের শিকার হয়ে পড়েন। তাঁদের মানসিক অস্তিত্বটাই টলমলে হয়ে যায়। এমনটা হতে দেবেন না, নিজের অধিকার আর সম্মান সম্পর্কে সচেতন থাকুন।

মনে রাখবেন আপনি একা নন
একা হয়ে যাওয়ার ভয়ে অনেক মেয়েই অত্যাচারী পার্টনারকে সহ্য করে সম্পর্কটায় থেকে যান। কিন্তু মনে রাখবেন, খেয়াল রাখা, যত্ন করার মতো মানুষ না থাকলেও আপনার জীবনে শান্তি রয়েছে। কাজেই আর সহ্য করবেন না, দরকারে অন্য আত্মীয় প্রতিবেশীদের সাহায্য নিন। পুলিশে যেতেও দ্বিধা করবেন না।

আরো পড়ুন:- বর্ণবাদবিরোধী নেতা নেলসন ম্যান্ডেলার জন্মদিন আজ

বিশ্বাস হারাবেন না
যাঁরা দীর্ঘদিন ধরে অত্যাচারের শিকার, তাঁরা মানুষের উপর থেকে বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেন। কিন্তু তা করলে চলবে না। মনে রাখবেন সব মানুষ একরকম নয়। তাই মানুষের উপর থেকে আর নিজের উপর থেকে, দুটি ক্ষেত্রেই বিশ্বাস ধরে রাখুন।

আরপি/ এএইচ

No Comments so far

Jump into a conversation

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

<