যে ৯টি সু-অভ্যাস এড়িয়ে চলা উচিৎ

যে ৯টি সু-অভ্যাস এড়িয়ে চলা উচিৎ March 12, 2016 0 comments

রঙ্গিন ডেস্ক : নিজেদের স্বাস্থ্যকর রাখতে পরিচ্ছন্নতার দিকে নজর দেওয়ার জন্য নানা রকম অভ্যাস তৈরি করি। কিন্তু নিজের ও পরিবারের স্বাস্থ্যের কথা ভেবে যে অভ্যাসগুলো আমরা তৈরি করি তা আদতে কতদূর স্বাস্থ্যকর সে বিষয়ে নিশ্চিত কী? সত্যি কথা বলতে এমন বহু অভ্যাস যা আপাতভাবে মনে হতে পারে স্বাস্থ্যকর কিন্তু আসলে তা নয়। এমন বহু অভ্যাসই আছে যা ভাল অভ্যাস বলে মনে হলেও তা বদ অভ্যাস। দীর্ঘকালীন সময়ে এসে এই অভ্যাসগুলোই আপনার নানাভাবে ক্ষতি করতে পারে। কোন কোন ‘সু-অভ্যাস’ আপনার এড়িয়ে চলা উচিত তাহলে জেনে নিন।

১. প্রত্যেক বার খাওয়ার পরে দাঁত মাজা

দন্ত বিশেষজ্ঞরা বলেন, খাওয়ার অন্তত ১ ঘন্টা পরে দাঁত মাজা উচিত। কারণ কিছু অ্যাসিড জাতীয় খাবারের প্রলেপ মুখে রয়ে যায়। দাঁত মাজলে মুখ ভিজে যায়, ওই ভেজা মুখে অ্যাসিডের প্রতিক্রিয়ায় দাঁত ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এছাড়া দিনে প্রত্যেক বার খাওয়ার পরে দাঁত মাজতে থাকলে দাঁতের ক্ষয় হতে থাকে। তাছাড়া ব্রাশের ব্রিসলের ফলে দুই দাঁতের মধ্যে ফাঁক বাড়তে থাকে।

২. মুখে সাবান

অনেকেই বাইরে থেকে ঘুরে এসে হাত-মুখ জীবাণুমুক্ত করতে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল সাবান বা জীবাণুনাশক সাবান ব্যবহার করেন। বিশেষজ্ঞদের মতে এই ধরণের বিশেষ সাবানে, কেমিক্যালের মাত্রা বেশি থাকে। যা ত্বকের পক্ষে মূলত মুখের ত্বকের ক্ষেত্রে উপযোগী নয়, ত্বক রূক্ষ করে দিতে তো পারেই, পাশাপাশি, পরবর্তী সময়ে ত্বকের নানা সমস্যা তৈরি করতে পারে।

৩. সারাদিনে অল্প অল্প করে বহুবার খাওয়া

দিনে ৬ বার ছোট ছোট অংশে খাওয়া খারাপ নয়। কিন্তু বিষয়টা হচ্ছে দিনে ৬ বার খেতে গিয়ে যেন দিনের শেষ খাবার মধ্যরাতে না হয়। বিশেষজ্ঞদের কথায়, সন্ধ্যা বেলার পর থেকেই আমাদের শরীরের স্বাভাবিক কাজের গতি ধীর হতে শুরু করে। তাই দিনে ৬টা ছোট ছোট খাবার হোক বা ৩টা মুখ্য খাবার, সব সময় রাত ৮টার মধ্যে শেষ করে ফেলার চেষ্টা করবেন।

৪. অতিরিক্ত ঘুম

ঘুমের ঘাটতি আপনার শরীরকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। আবার এটাও ঠিক প্রয়োজনের বেশি অতিরিক্ত ঘুম আপনার মস্তিষ্কের স্বাভাবিক প্রক্রিয়াকে বাধাপ্রাপ্ত করে, ফলে স্মৃতিশক্তি লোপ পাওয়া, কথায় কথায় বিভ্রান্ত হয়ে যাওয়ার মতো সমস্যা দেখা যেতে পারে।

৫. সূর্য

সূর্যের তাপে চামড়া পুড়ে যায় ঠিকই। অনেকের আবার অতিরিক্ত সূর্যের আলো ও তাপে অ্যালার্জিও হয়। কিন্তু তা বলে সূর্যের রশ্মি একেবারে এড়িয়ে চলাও ভাল না। কারণ সূর্যের আলো থেকে আমরা শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় ভিটামিন ডি পাই। সূর্যকে এড়িয়ে চললে আমাদের শরীরে ভিটামিন ডি-এর ঘাটতি হয়।

৬. প্রত্যেকদিন জিমে ভারোত্তলন

নিজেকে ফিট রাখতে প্রত্যেকদিন ওয়ার্কআউট এবং যোগাসন করা খুব ভাল অভ্যাস। কিন্তু এটাও মনে রাখতে হবে কোনও কিছু অত্যাধিক ভাল না। তাই শরীরের কোনও পেশীর জন্য প্রয়োজনীয় কসরত পরপর দু’দিন করা উচিত নয়। পেশীকে একদিন খাটিয়ে একদিন বিশ্রাম দেওয়া অবশ্যই প্রয়োজন।

৭. সাপ্লিমেন্ট ক্যাপসুল

শরীরে ক্যালসিয়াম, পটাশিয়ামের ঘাটতি মেটাতে অনেকেই সাপ্লিমেন্ট ওষুধ সেবন করেন। কিন্তু স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের কথায় অতিরিক্ত পরিমানে সাপ্লিমেন্ট ক্যাপসুল খেলে তার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায়ও হয়। সব সময় প্রাকৃতিক উপায়ে অর্থাৎ শাক, সবজি, ফল, এমনকী মাছ, মাংস প্রভৃতি দিয়ে শরীরে প্রয়োজনীয় ঘাটতি মেটানো উচিত।

৮. বোতলে বিক্রি মিনারেল ওয়াটার

বোতলে বিক্রি মিনারেল ওয়াটার খাওয়া অনেকে স্বাস্থ্যকর মনে করলেও বিশেষজ্ঞদের একাংশের মতে এই ধরণের পানি অনেক পদ্ধতিতে পরিশ্রুত করা হয়। কখনও কেমিক্যালের সাহায্যেও একে পরিশ্রুত করা হয়ে থাকে। ফলে এই ধরণের পানি খুব বেশি না খাওয়াই উচিত।

৯. ধ্যানের ভুল প্রক্রিয়া

ধ্যান করা শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ থাকার জন্য অত্যন্ত উপযোগী। কিন্তু যদি ভুল উপায়ে, ভুল সময়ে এবং ভুল জায়গায় ধ্যান করা হয়, তাহলে তা উপকারের থেকে ক্ষতি করে বেশি।

 

টিএইচ/এএইচ

No Comments so far

Jump into a conversation

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

Your data will be safe!Your e-mail address will not be published. Also other data will not be shared with third person.