চোখের পানি আটকাতে পারলেন না চন্দা-চম্পা-ববি

চোখের পানি আটকাতে পারলেন না চন্দা-চম্পা-ববি নভেম্বর ৩০, ২০১৯ ০ comments
bobita

গ্রিনলাইফ হাসপাতালে তিন কন্যাখ্যাত চিত্রনায়িকা সুচন্দা, ববিতা ও চম্পা। ছবি- সংগৃহীত

রঙিন ডেস্ক: গত ২৬ নভেম্বর রাত ১০টার দিকে খাবার খেতে গিয়ে ফুসফুসে খাবার আটকে অসুস্থ হয়ে পড়েন দশবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান। অবস্থার অবনতি হলে তাকে রাজধানীর গ্রিনলাইফ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমানে সেখানে লাইফ সাপোর্টে রয়েছেন তিনি।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার দুপুরে নন্দিত এই চিত্রগ্রাহকের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পড়ে। পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মৃত্যুর খবরটি গুজব ছাড়া আর কিছুই নয়। তিনি এখনো বেঁচে আছেন। তার লাইফ সাপোর্টও চলছে।

মৃত্যুর গুজব শুনে মাহফুজুর রহমানকে দেখতে হাসপাতালে ছুটে গিয়েছিলেন তিন কন্যাখ্যাত চিত্রনায়িকা সুচন্দা, ববিতা ও চম্পা। গত বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় হাসপাতালে গিয়ে প্রিয় এই মানুষটিকে দেখে এসেছেন তারা। তাদের দেখে চোখের পানি ফেলেছেন মাহফুজুর রহমান। চোখের পানি আটকে রাখতে পারেননি সুচন্দা, ববিতা ও চম্পাও।

চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান। ছবি- সংগৃহীত

চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান। ছবি- সংগৃহীত

আরো পড়ুন: স্বামীকে বিবাহবার্ষিকীর আগাম উপহার দিলেন প্রিয়াঙ্কা

চম্পা বলেন, ‘আমরা তিন বোন যখন মাহফুজ ভাইকে দেখতে আইসিইউতে গেলাম, উনাকে ডাক দিলাম, তিনি তখন চোখের জল ফেলেছেন। আমার মনে হয়েছে, তিনি আমাদের চিনতে পেরেছেন। আমরাও চোখের পানি আটকে রাখতে পারিনি। এমন প্রাণবন্ত একজন মানুষটিকে এ অবস্থায় দেখতে হবে ভাবিনি।’

দীর্ঘদিন ধরে মাহফুজুর রহমান খান ডায়াবেটিস ও ফুসফুসের রোগে ভুগছিলেন। তার স্ত্রী মারা যান ২০০১ সালে। তখন থেকেই ধীরে ধীরে তিনি অসুস্থতায় পড়েন।  নিঃসন্তান মাহফুজুর রহমান খান স্ত্রীকে হারানোর পর একাই জীবন যাপন করতেন। নিঃসঙ্গতা কাটতে ডুবে থাকতেন চলচ্চিত্র আর চলচ্চিত্রের মানুষদের সঙ্গে গল্প আড্ডায়।

উল্লেখ্য, ১৯৭২ সালে প্রথম চলচ্চিত্রে কাজ করেন মাহফুজুর রহমান খান। এরপর আলমগীর কবির, আলমগীর কুমকুম, হুমায়ুন আহমেদ, শিবলি সাদিকের মতো চলচ্চিত্র পরিচালকদের সঙ্গে চিত্রগ্রাহক হিসেবে কাজ করেন তিনি। চলচ্চিত্রের চিত্রগ্রহণের জন্য দশবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জিতেছেন এই গুণীজন।

এসএল/এএইচ

No Comments so far

Jump into a conversation

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

<