অস্কারজয়ী হলিউড অভিনেত্রী লিচম্যান আর নেই

জানুয়ারি ২৮, ২০২১ ০ comments

রঙিন ডেস্ক : অস্কারজয়ী কিংবদন্তি হলিউড অভিনেত্রী ক্লোরিস লিচম্যান আর নেই। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় নিজ বাড়িতে ৯৪ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। বয়সজনিত কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে বলে গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন অভিনেত্রীর দীর্ঘদিনের ম্যানেজার জুলিয়েট গ্রিন।

গ্রিন বলেন, ‌আমাদের সময়ের অন্যতম নির্ভীক অভিনেত্রী ছিলেন ক্লোরিস লিচম্যান। তার সঙ্গে কাজ করা সৌভাগ্য হয়েছে আমার। ক্লোরিসের মতো আর কেউ ছিল না। একবার লুক দিয়েই তিনি অনুরাগীদের হৃদয় ভেঙে দেওয়ার ক্ষমতা রাখতেন। তিনি চোখে জল না আসা পর্যন্ত মানুষকে হাসাতে পারতেন। ক্লোরিস কী বলবেন বা করবেন তা কখনই জানা যেত না। তাঁর মধ্যে সেই অপ্রত্যাশিত গুণটি ছিল।’

লিচম্যানের মৃত্যুর সময় মেয়ে দিনাহ এংলুন্ড পাশে ছিলেন।

ক্লোরিস লিচম্যান একজন মার্কিন কৌতুকাভিনেত্রী। সাত দশকের বেশি সময়ের কর্মজীবনে তিনি রেকর্ডসংখ্যক ৯টি প্রাইমটাইম এমি পুরস্কার (জুলিয়া লুই-ড্রাইফাসের সাথে যৌথভাবে), একটি ডেটাইম এমি পুরস্কার, একটি একাডেমি পুরস্কার, একটি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার ও একটি বাফটা পুরস্কার অর্জন করেছেন।

১৯৪৬ সালে তিনি মিস শিকাগো হিসেবে ২০তম মিস আমেরিকা সুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন এবং শীর্ষ ১৬ প্রতিযোগীর মধ্যে ছিলেন। লিচম্যান ১৯৭১ সালে দ্য লাস্ট পিকচার শো চলচ্চিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে একাডেমি পুরস্কার ও বাফটা পুরস্কার অর্জন করেন।

তিনি ১৯৭০-এর দশকে সিবিএস চ্যানেলের দ্য ম্যারি টাইলার মুর শো ও এর স্পিন অফ ফিলিস অনুষ্ঠানে ফিলিস লিন্ডস্ট্রম চরিত্রে অভিনয় করেন। ফিলিস ধারাবাহিকে তার কাজের জন্য তিনি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার অর্জন করেন। এছাড়া তিনি ইয়ং ফ্রাঙ্কেনস্টাইন (১৯৭৪) সহ মেল ব্রুক্স পরিচালিত তিনটি চলচ্চিত্র, ১৯৮৬-৮৮ সাল পর্যন্ত এনবিসির দ্য ফ্যাক্টস অব লাইফ ও দ্য বেভারলি হিলবিলিজ (১৯৯৩) এ ডেইজি মে মোজেস চরিত্রে কাজ করেন।

২০০০-এর দশকে লিচম্যান ফক্স চ্যানেলের ম্যালকম ইন দ্য মিডল সিটকমে ইডা ও ২০০৮ সালে বব স্যাগেটের কমেডি সেন্ট্রাল রোস্ট-এ তাকে দেখা যায়। ২০০৮ সালে তিনি এবিসি চ্যানেলের রিয়্যালিটি প্রতিযোগিতা ধারাবাহিক ড্যান্সিং উইথ দ্য স্টারস-এর সপ্তম মৌসুমের একজন প্রতিযোগী ছিলেন এবং তার যুগল ছিলেন কর্কি বালাস। সে সময়ে তিনি ৮২ বছর বয়সী ছিলেন এবং তিনি এই ধারাবাহিকে অংশগ্রহণকারী বয়োজ্যেষ্ঠ প্রতিযোগী ছিলেন। ২০১০ থেকে ২০১৪ সালে তিনি ফক্স চ্যানেলের সিটকম রাইজিং হোপ-এ ম ম চরিত্রে এবং ২০১৭ সাল থেকে তিনি আমেরিকান গডস-এ জোরইয়া ভেচেরনায়া চরিত্রে অভিনয় করেছেন।

ক্লোরিস লিচম্যান আইওয়ের ডেস মোইনসের সীমান্তে বেড়ে ওঠেন। ১৯২৬ সালে সেখানে একটি অসচ্ছল পরিবারে জন্ম হয় তার। ১৯৫৩ পরিচালক- প্রযোজক জর্জ এংলুন্ডের সঙ্গে ঘর বাঁধেন তিনি। তাদের সংসারে ৫ সন্তান।

আরপি/ এএইচ

No Comments so far

Jump into a conversation

No Comments Yet!

You can be the one to start a conversation.

<